April 16, 2024
কিডনি ড্যামেজের লক্ষণ - kidney disease

আপনার শরীরের কিডনি ড্যামেজের লক্ষনগুলি উপর নির্ভর করে আপনার কিডনির ক্ষতি । সাধারণত প্রথম অবস্থায় আপনার কিডনি ড্যামেজের কোন লক্ষণ  নাও থাকতে পারে । যদি আপনার কিডনি অতিরিক্ত পরিমাণে ক্ষতি হয় তাহলে নিম্নলিখিত লক্ষণ গুলো দেখা দিতে পারে ।  তাই চলুন দেখে নেয়া যাক নিচে কি কি লক্ষণ দেখা দিলে বুঝবো যে কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে । 

কিডনি ড্যামেজের লক্ষণ:

  • প্রতিনিয়ত যে পরিমাণ  প্রসাব হওয়ার কথা এর  থেকে পরিবর্তন হওয়া । কিডনি যখন রক্ত ফিল্টার করতে পারে না তখন প্রস্রাবের  পরিমাণ কমে যেতে পারে বা বেড়েও যেতে পারে । 
  •  প্রস্রাবের রং বা ঘনত্ব পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে, কিডনি যখন রক্ত ফিল্টার করতে ব্যর্থ হয় তখন প্রসাবের রঙ গাঢ় হতে পারে বা ফেনা হতে পারে । 
  • কিডনি যখন ক্ষতিগ্রস্ত হয় তখন প্রসারে রক্ত বা প্রোটিন দেখা দিতে পারে  ।
  • যখনই দেখবেন যে আপনার শরীর থেকে উচ্চ রক্তচাপ বেড়ে গেছে তখনই বুঝবেন যে আপনার শরীর থেকে সোডিয়াম জমে গেছে ।  সোডিয়াম জমির যাওয়ার ফলেই আপনার শরীরের উচ্চ রক্তচাপ বেড়ে যায় ।
  • কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ফলে শরীরে তরল জমে গিয়ে  শ্বাসকষ্টে পরিণত হতে পারে । 
  • কিডনির ক্ষতির পরে আপনার শরীর অতি দুর্বল হয়ে শরীরে পুষ্টি শোষণ  করতে সমস্যা হয় ।   যার ফলে ক্ষুধা মন্দা হতে পারে । 
  •  কিডনির ক্ষতির ফলে শরীরে বিষাক্ত পর্দা জমা হয় যার ফলে মাথা ব্যাথা হতে  পারে । 

উপরে যে সকল কিডনির সমস্যা গুলো বলা হল এর মধ্যে আপনি যদি অনুভব করে থাকেন তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করবেন ।  ডাক্তার আপনার এই সমস্যা গুলোর উপর ভিত্তি করে পরীক্ষা করে নির্ধারণ করতে পারবেন । আপনার শরীরে যে কোন সমস্যার ক্ষেত্রে আপনি কোন প্রকার অজুহাত বা অলসতা অবলম্বন করবেন না ।  যদি করেন তাহলে আপনার সামান্য একটি সমস্যা অনেক বড় হতে পারে । এখন আসুন দেখি নেয়া যাক আসলে কি কি কারনে কিডনি ড্যামেজের হতে পারে । 

আর পড়ুন

কিডনি  ড্যামেজের  কারণগুলোর মধ্যে রয়েছে,

  • ডায়াবেটিস এর প্রধান একটি কারণ আছে এটি । 
  •  উচ্চ রক্তচাপ এর কারণে কিডনি ড্যামেজ হওয়ার মূল উদ্দেশ্য  এটি একটি প্রধান কারণ । 
  • রক্তে জমাট বাধা কিডনির ক্ষতি হতে পারে ।
  • কিডনিতে পাথর জমাট  হওয়ার কারণে কিডনির ক্ষতি হতে পারে । 
  • কিডনির মধ্যে সংক্রমণ জমা হওয়ার কারনে কিডনির ক্ষতি হতে পারে ।
  • কিছু কিছু ওষুধ রয়েছে যেগুলোর মাধ্যমে কিডনির সমস্যা গুলো দেখাতে পারে । 

উপরে যে সকল সমস্যাগুলো কারণে কিডনির ক্ষতি হয় সে সকল কারণ তুলে ধরা হয়েছে ।  তাই আপনি চেষ্টা করবেন যেন সবগুলো না হোক কিছু কিছু ক্ষেত্রে এগুলো ।  আপনি চাইলে আপনার শরীরকে সুস্থ রাখতে পারবেন। শুধু আপনার শক্ত মনোবলের প্রয়োজন  আর চেষ্টা । তাই যে কোন কাজ করার আগে অবশ্যই সকল দিক বিবেক বিবেচনা করে দেখবেন । 

 

 এখন আসুন দেখে নেয়া যাক,

কিডনি ড্যামেজের প্রতিরোধে কি কি পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে:

  • সর্বপ্রথম আপনাকে ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে ।
  • আপনার শরীরের ওজন বজায় রাখতে হবে ।
  •  প্রতিনিয়ত ব্যায়াম করতে হবে ।
  •  পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করতে হবে । 
  •  অ্যালকোহল ধূমপান এড়িয়ে চলতে হবে । 
  •  এমন কিছু কিছু ওষুধ রয়েছে  যেগুলো প্রতিক্রিয়া মুক্ত সেসকল ওষুধ সেবন করতে হবে, এছাড়াও ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন । 

দিকনির্দেশনাঃ

আপনার কিডনিকে সুস্থ রাখতে এবং এর ক্ষতি থেকে বিরত রাখতে উপরের যে সকল দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে অবশ্যই অবশ্যই আপনাকে মেনে চলতে হবে ।  তা না হলে পরবর্তীতে এর প্রতিফল আপনাকে ভোগ করতে হবে ।  আর হ্যাঁ অবশ্যই আপনাকে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে । পানি আপনার  কিডনিকে সুস্থ সবল রাখতে সাহায্য করবে । প্রীতি সকল সমস্যাগুলোর কথা বলার আছে যদি আপনার এর থেকেও বেশি সমস্যা দেখা দেয় বা এগুলো সমস্যায় দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই আপনি ভালো একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন ।  ডাক্তারের আদেশ নির্দেশ অনুযায়ী আপনার কি চলতে হবে তাহলে আপনি এই সকল সমস্যা থেকে বের হয়ে আসতে পারবেন । নিয়মিত ব্যায়াম করুন এবং ওষুধ সেবন করুন দেখবেন যে অল্প কয়েকদিনের মধ্যে আপনি সুস্থ হয়ে উঠবেন এবং যে সবার আদেশ নির্দেশ দেওয়া আছে সেগুলি  মেনে চললেই আপনি অতি দ্রুত সুস্থ  হয়ে উঠবেন। 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *