July 12, 2024
কোন ভিটামনের অভাবে হাত-পা জ্বালাপোড়া করে । আসুন জেনে নেই ।

সাধারণত অনেক মানুষে জানেনা কোন ভিটামিনের অভাবে হাত-পা জ্বালাপোড়া করে ।  । অনেকের ভুল ধারণার ধারণার কারণে এই সমস্ত ভিটামিন এর অভাব পূরণ হয় না ।  সাধারণত ভিটামিনের অভাবের কারণে এই সকল সমস্যা গুলো দেখা দেয় ।  ভিটামিনের অভাবে ত্বকের স্বাস্থ্য প্রভাবিত হতে পারে যা সহজে হাত-পা জ্বালা পোড়ার মধ্যে লক্ষণীয় দেখা দিতে পারে ।  তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে ভিটামিনের এই সমস্যা গুলো দেখা দিতে পারে ।  তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভিটামিনের অভাবে কারণে এই সকল সমস্যাগুলো দেখা দেয় ।  আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক কোন ভিটামিনের অভাবে হাত পা জ্বালাপোড়া করে । এ সকল ভিটামিনের অভাবের কারণে হাত পা জ্বালাপোড়া করে আসুন তা নিচে দেখে নেয়া যাক । 

 কোন ভিটামিনের অভাবে হাত পা জ্বালাপোড়া করে 

  • ভিটামিন বি এর হচ্ছে মূল উৎস । ভিটামিন বি এর অভাবে বেরিবেরি রোগ হতে পারে .  ভিটামিন বি এর অভাব থাকলে হাত পা জ্বালাপোড়ার সৃষ্টি হতে পারে ।
  • এরপর ভিটামিন সি, সাধারনত  আমরা অনেকেই জানি ভিটামিন সি এর অভাবে ত্বকের সুস্থ রক্ষায় ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে আর এবং এটি জ্বালাপোড়া ও লক্ষণ উৎপন্ন করতে পারে ।  ঝিমঝিম, মুখের কোণায় ফাটা, চোখের জ্বালা, জিভের প্রদাহ ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।
  •  ভিটামিন বি ১২ ,  এই ভিটামিনের অভাব শরীরে অনেক ধরনের লক্ষণ সৃষ্টি করেছেন যেমন হাত-পা জ্বালাপোড়া ।
  •  এরপর রয়েছে ভিটামিন ডি , এটি সাধারণত ডি অভাবের লক্ষণ হতে পারে ত্বকের সুস্থ অবস্থায় যেমন জ্বালাপোড়া । 

আর পড়ুন –ক্লিক

আপনি একজন অভিজ্ঞ ডাক্তার পরামর্শ নিয়ে এই সকল ভিটামিন ট্যাবলেট গুলো সেবন করলে অতি দ্রুত আপনি এই সমস্যা থেকে সমাধান পেয়ে যাবেন  । এরপরও যদি এর সমাধান না হেন তাহলে একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ দিয়ে ওষুধ সেবন করলে এই সমস্যা থেকে রেহাই পাবেন । 

এছাড়াও আরও কিছু কারণ রয়েছে এ সকল কারণের জন্য এই ধরনের সমস্যা হতে পারে চলুন দেখে নেয়া যাক সেই সকল কারণগুলো

হাত-পা জ্বালাপোড়া ভাবের পেছনে বেশ কিছু কারণ থাকতে পারে, যার মধ্যে ভিটামিনের অভাবও একটি।

কোন ভিটামিনের অভাবে হাত-পা জ্বালাপোড়া হতে পারে:

অন্যান্য কারণ:

  • ডায়াবেটিস: দীর্ঘদিনের ডায়াবেটিসের কারণে স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে, যার ফলে হাত-পায়ে জ্বালাপোড়া, ঝিমঝিম, অবশ ভাব ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।
  • কিডনির রোগ: কিডনির রোগের কারণে শরীরে বিষাক্ত পদার্থ জমা হতে পারে, যা স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এবং হাত-পায়ে জ্বালাপোড়া, ঝিমঝিম, অবশ ভাব ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।
  • লিভারের রোগ: লিভারের রোগের কারণেও শরীরে বিষাক্ত পদার্থ জমা হতে পারে, যা স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এবং হাত-পায়ে জ্বালাপোড়া, ঝিমঝিম, অবশ ভাব ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।
  • সংক্রমণ: কিছু সংক্রমণ, যেমন কুষ্ঠ, হাত-পায়ে জ্বালাপোড়া, ঝিমঝিম, অবশ ভাব ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।
  • ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া: কিছু ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে হাত-পায়ে জ্বালাপোড়া, ঝিমঝিম, অবশ ভাব ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দিতে পারে।

পরামর্শ ঃ

আপনারা যদি ওষুধ সেবন করতে না চান তাহলে যে সকল শাক-শক্তিটি প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন রয়েছে সে সকল আর রান্না করে খেলে সমস্যা থেকে সমাধান পাবেন ।  কেননা ওষুধের খেয়ে কি শাকসবজিতে রয়েছে কোচের ভিটামিন যা আপনার  রোগের জন্য অতি দ্রুত কাজ করবে ।  সাধারণত আমরা যে সকল সবুজ শাকসবজি প্রতিনিয়ত খেয়ে থাকি সে সকল সবুজ শাকসবজিতে অনেক রকমের ভিটামিন রয়েছে ।  যা আপনার ওষুধের থেকে শত গুণ নিয়ে বেশি কাজ করে থাকে ।  এছাড়াও আপনার অন্য সমস্যা যদি থেকে থাকে তাহলে সেগুলোর সমাধান হয়ে যেতে পারে । 

 দিকনির্দেশনাঃ

প্রতিনিয়ত সবুজ শাকসবজি খাওয়ার ফলে যদি এই সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে অবশ্যই একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আপনাকে ওষুধ সেবন করতে হবে ।  কেননা আপনি দীর্ঘদিন ধরে এই সমস্যা ভোগার কারণে এই রোগটি অতি দ্রুত নাও  সারতে পারে এ সকল সবুজ শাকসবজি খেয়ে ।  তাই সবথেকে ভালো হবে আপনি আপনার নিকটস্থ অভিজ্ঞ ডাক্তার পরামর্শ করে ওষুধ সেবন করতে পারেন ।  

আরও পড়তে ক্লিক করুন – ক্লিক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *