May 24, 2024
জরায়ু ইনফেকশনের লক্ষণ - Uterine infection

জরায়ু ইনফেকশন সাধারণত লক্ষণগুলি গর্ভধারণের পরেই দেখা যায় । অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে গর্ভবতী মহিলারা এই সমস্যায় ভোগে । তাই চলুন দেখি নেয়া যাক লক্ষণ গুলির মধ্যে কি কি রয়েছে এবং এর প্রতিরোধে কি কি কাজ করা যেতে পারে । তাই চলুন আর বেশি কথা আলোচনা না  বলে দেখে নেয়া যাক এর সমস্যা গুলি্‌,

জরায়ু ইনফেকশন সাধারণত লক্ষণ:

  • জরায়ুর  সমস্যার সবচেয়ে প্রধান লক্ষণটি হচ্ছে  জ্বর । 
  • জ্বর সাধারণত 100.4 ডিগ্রি ফারেনহাইট (38 ডিগ্রি সেলসিয়াস) এর বেশি হয়।
  • এছাড়া রয়েছে জনপদের তরল ক্ষরণ হতে পারে ।  তরল ক্ষরণ সাধারণত হলুদ সবুজ রংগের এবং দুর্গন্ধযুক্ত হয়ে থাকে । 
  •  প্রস্রাব এর সময় ব্যথা ও জ্বালার করা হতে পারে । 
  •  জরায়ু  ইনফেকশনের কারণে  বমি বমি ভাব হতে পারে ।
  • এছাড়া আরও কিছু লক্ষণ রয়েছে সেগুলো বিষয়ে আলোচনা করা যেতে পারে । 
  • তার আগে পরিচিতি সকল লক্ষণ গুলো দেখা দিয়েছিস সে সকল লক্ষণ গুলো একটু খেয়াল রাখবেন ।  এর মধ্যে যদি আপনাদের সকল সমস্যা দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ দিবেন ।  এখন আসুন জেনে নেয়া যাক  জরায়ু ইনফেকশনের গুরুতর লক্ষণ গুলো কি কি
  • পিঠেও শরীরে ব্যথা হতে পারে । 
  •  ঘন ঘন প্রস্রাব হতে পারে । 
  •  প্রথম অবস্থায় যে পরিমাণ প্রসাব বের হয়েছে সে পরিমাণে প্রস্রাব বের নাও হতে পারে ।
  • স্রাবের রক্ত এবং প্রোটিন দেখা দিতে পারে ।
  •  এছাড়াও শ্বাসকষ্ট হতে পারে ।

এই জরায়ু ইনফেকশন হচ্ছে একটি গুরুতর অবস্থা ।  আপনি যদি উপরের  সকল সমস্যার মধ্যে কিছু সমস্যা অনুভব করতে পারেন তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে দেখা করার গুরুত্বপূর্ণ  ।  ব্যাপার সাথে দেখা করে আপনার এই সকল সমস্যার কথা বলতে হবে এবং ডাক্তার যে সকল পরামর্শ দিবে তা মেনে চলতে হবে । 

অন্যান্য পোষ্ট পড়তে ক্লিক করুন 

 এখন আসুন দেখে নেয়া যাক”

জরায়ু ইনফেকশন প্রতিরোধে কি কি করা যেতে পারে:

  • স্বাস্থ্যকর ও পরিষ্কার যৌনতা অনুসরণ করা    । 
  • গর্ভকালীন অবস্থায় নিয়মিত চেকআপ করা । 
  •  স্বাস্থ্যকর খাবার খান এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন 
  • গর্ভধারণের আগে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলুন । 

পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা আপনাকে সুস্থ সবল রাখতে সাহায্য করবে ।  এবং পুষ্টিকর খাবার আপনার যেকোনো রোগ প্রতিরোধ করতে অনেক সাহায্য করবে তাই প্রতি নিয়ত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করুন ।  এবং প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন ।  যথাযথ পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা থাকতে চেষ্টা করুন  । থাকা খাওয়ার স্থান পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রাখার চেষ্টা করুন । 

পরামর্শ:

ডাক্তারি পরামর্শ নিন এবং ভালো একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের সাথে দেখা করে আপনার সমস্যা গুলোর কথা বলুন, এবং ডক্টর যে দিকনির্দেশনা দেয় সে দিক নির্দেশনা অনুযায়ী চলুন । একজন রুবি অতি তাড়াতাড়ি সুস্থ হয় তা শক্ত এবং আগ্রহ থেকে ।  তাই আপনি অতি আগ্রহী হয়ে এবং চাঙ্গা মনোবল নিয়ে ওষুধ সেবন করুন দেখবেন অতি তাড়াতাড়ি আপনার এই সমস্যা থেকে বের হয়ে আসতে পারবেন ।  তাই আপনার যদি এই সমস্যা হয়ে থাকে এখুনি ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন । 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *