May 18, 2024
পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট বা ঔষধ এর নাম । বাচ্চাদের পাতলা পায়খানার সিরাপ

সাধারণত পাতলা পায়খানা হলে আমরা বিভিন্ন ধরনের ঔষুধ বা ট্যাবলেট সেবন করে থাকি । আজকে আপনাদের জানাবো পাতলা পায়খানার ট্যাবলেটের নাম বাচ্চাদের পাতলা পায়খানা সিরাপ ।  নিচে যে সকল ট্যাবলেটের নাম দেওয়া হয়েছে এ সকল ট্যাবলেট সেবন করলে পাতলা পায়খানা  কয়েক ঘন্টার মধ্যে কমে আসবে ।  নিয়ম অনুযায়ী সেবন করলে আপনার পাতলা পায়খানা অতি দ্রুত কমে আসবে । 

সাধারণত পাতলা পায়খানার জন্য বিভিন্ন  সেলাইন ব্যবহার করে থাকি । আমাদের ট্যাবলেট এর থেকে ৮০%বেশি কাজ করে থাকে  । সাধারণত পানি শূন্যতা পূরণ করতে সাহায্য করে ।  আর পাতলা পায়খানা হলে শরীরে পানি শূন্যতা দেখা দেয় ।  আর ট্যাবলেট পায়খানা শক্ত করতে সাহায্য করে ।  তাই আসুন দেখে নেই কোন ওষুধ গুলো খেলে দূর হবে ,পাতলা পায়খানার ট্যাবলেটের নাম বাচ্চাদের পাতলা পায়খানা সিরাপ সম্পর্কে, 

পাতলা পায়খানার ট্যাবলেট এর নামঃ

সাধারণত পানিবাহিত  একটি রোগের নাম হচ্ছে পাতলা পায়খানা ।  পাতলা পায়খানা ট্যাবলেট ওষুধের নাম হল “লপেরামাইড” । এটি হচ্ছে একটি এন্টিডিয়ারি  ওষুধ যা আপনার পায়খানা কে  ঘন করে এবং মলত্যাগের ফ্রিকোয়েন্সি কমাতে সাহায্য করে । সাধারণত এই  ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া এবং পরজীবী দ্বারা সৃষ্ট হতে পারে ওষুধের দ্বারা এ সকল ভাইরাস  নির্মূল করা সম্ভব ।  তাই আসুন এই ওষুধটি ছাড়া আরও বাকি কতগুলো ওষুধ রয়েছে যেগুলো তারা এই পাতলা পায়খানা নির্মূল করা যায় । তাই চলুন  দেখে নেই কি কি ওষুধগুলো,

  1.  “অ্যাবাস্টিল” পাতলা পায়খানার জন্য আপনি এই ওষুধটি খেতে পারেন । 
  2. এছাড়া আর একটি ট্যাবলেট রয়েছে, “ডিফেনক্সাইড” এই ওষুধটাও পাতলা পায়খানার জন্য ব্যবহৃত হয় । 
  3. এরপর রয়েছে “লোপেরামাইড ল্যাকটেড” এই ট্যাবলেটটিও খেতে পারেন ।
  4.  এরপর রয়েছে “এমোটট্রিপলিটিন” ।
  5. সব থেকে আরেকটি ভালো ওষুধ রয়েছে যেটা পাতলা পায়খানা আমাশয়  রোগের জন্য ব্যবহার করা হয় এটি হচ্ছে – মেট্রো ৪০০  এবং এমোডিক্স । সাধারণত এই ট্যাবলেট দুটি এইসব রোগের কাজ করে । 

সাধারণত “লপেরামাইডের” কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে  । এই ওষুধটি যেমন পাতলা পায়খানার কাজ অতি দ্রুত এবং কার্যকারিতার সাথে করে থাকে তেমনি এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে ।  আসুন জেনে নেই এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে । 

লপেরামাইডের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াঃ

  • বমি বমি ভাব হাওয়া । 
  •  বমি হাওয়া । 
  •  পেট ব্যথা । 
  •  এরপর রয়েছে কোষ্ঠকাঠিন্য । 
  •  এছাড়াও পেট থাকা বা   অন্ত্রের অবরুদ্ধাতা । 

 সাধারণ এই ট্যাবলেট সকল সমস্যা দেখা দিলে বুঝতে হবে এই ট্যাবলেটের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে ।  এই ট্যাবলেট পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া  দেখা দিলে অবশ্যই একজন ভাল ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিন। 

আরও পড়ুন

এবার আসুন জেনে নেয়া যাক বাচ্চাদের পাতলা পায়খানা হলে কোন কোন সিরাপ খাওয়ালে বাচ্চার পাতলা পায়খানা কমে যায় । সাধারণত জানা যায় যে এ সকল সিরাপ গুলি “লপেরামাইড” নামে একটি ওষুধের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয় ।  “লপেরামাইড” একটি অ্যান্টিডিয়ারি ওষুধ যা মলকে বা  পায়খানাকে ঘন করে এবং মলত্যাগের ফ্রিকোয়েন্সি কমাতে সাহায্য করে ।

বাচ্চাদের জন্য উপযুক্ত  “লপেরামাইড” সিরাপ এর মধ্যে রয়েছে;

বাচ্চাদের পাতলা পায়খানার সিরাপঃ 

  • ইমোডিয়াম।
  •  ডাইরিড । 
  • কোলস্টাপ । 
  •  এডাপটল  । 

সাধারণত এই সকল সিরাপ গুলি প্রতিটি বিভিন্ন মাত্রায় পাওয়া যায় তাই আপনার সন্তানের বয়স অনুযায়ী এবং ওজন অনুযায়ী সঠিক মাত্রা নির্ধারণ করা গুরুত্বপূর্ণ । তবে কিছু দিকনির্দেশনা রয়েছে যেমন এ সকল সেরা খাওয়ার আগে অবশ্যই ডাক্তারের সাথে কথা বলা জরুরী । 

এর সকল ওষুধ সেবনের আগে ভালো করে জেনে নিন যে আপনার সন্তানের মধ্যে যদি এলার্জি থাকে বা  আপনার সন্তান অন্য কোন ওষুধ সেবন করে কিনা ,  আপনার সন্তানের কিডনি বা লিভারের সমস্যা  আছে কিনা , এ সকল সমস্যা থাকলে একজন ভালো অভিজ্ঞ ডাক্তারের সাথে কথা বলে এরপর সেবন করাবেন । 

দিকনির্দেশনাঃ

আপনার সন্তানকে প্রচুর পরিমাণে তরল পানি পান করান ।  এছাড়াও আপনার সন্তান হওয়ার যেমন পীরের পানি, ডাবের পানি ,  ফলের রস , এছাড়াও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে স্যালাইন ।  প্রতিনিয়ত নিয়ম করে স্যালাইন খাওয়াতে হবে ।  স্যালাইন সকলেই খেতে পারে বড় এবং ছোট ।  কিন্তু দুজনের মধ্যে নিয়মটা আলাদা ।  স্যালাইনের প্যাকেটের মধ্যে নিয়মগুলো লেখা রয়েছে সেই নিয়ম অনুযায়ী স্যালাইন গুলো খাওয়া্ন । 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *