May 18, 2024
পুরুষাঙ্গের রোগ ও প্রতিকার । প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া ও পুরুষাঙ্গে চুলকানি ।

পুরুষাঙ্গের রোগ ও প্রতিকার । পুরুষাঙ্গের রোগ বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে যেমন, প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া, পুরুষাঙ্গে চুলকানি ,  পুরুষাঙ্গ দাড় না হওয়া” পুরুষাঙ্গ ফুলে যাওয়া” প্রসবের সময় পুরুষাঙ্গ কিটকিট ব্যাথা করা ইত্যাদি ।  এছাড়া আরও বিভিন্ন প্রকার সমস্যা হতে পারে ।  একজন মানুষ যখন পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে জন্মের পর থেকেই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয় ।  আর যখন মানুষ প্রাপ্তবয়স্ক হয় তখন কিছু কিছু মানুষের পুরুষাঙ্গ বা যৌন সমস্যা হয়ে থাকে ।  তাই উপরে যে সকল রোগের কথা আলোচনা করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ব্যাখ্যা করা হলো নিচে ।  প্রথমত জেনে নেয়া যাক পুরুষাঙ্গের রোগের সম্পর্কে ,

 পুরুষাঙ্গের রোগ

বেশিরভাগ মানুষেরই দেখা যায় প্রসাবে জ্বালাপোড়া । এই প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া করা, এটি হয়ে থাকে বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়ার মাধ্যমে ।  যখন কোন ব্যক্তি তার স্ত্রীর সাথে মেলামেশা করার পর  নিয়ম না মেনে মেলামেশা করে তখনই এই সমস্যা হয়ে থাকে ।  স্ত্রীর সাথে মেলামেশা করার পর বীর্য বের হওয়ার পর এর কিছুক্ষণ পর প্রস্রাব করে নিতে হবে ।  প্রস্রাব করতে হয় এজন্য যেন কোন প্রকার বীর্য না থাকে ।  প্রস্রাবের রাস্তায় বা পুরুষাঙ্গে বীর্য থাকলে বিভিন্ন প্রকার সংক্রমণ আক্রমণ করে । মূলত এই কারণে অনেক সমস্যা হতে পারে ।  যেমন পুরুষাঙ্গে কিটকিট ব্যথা”  পুরুষাঙ্গ ফুলে যাওয়া” পুরুষাঙ্গ ভাইরাসে আক্রান্ত” এছাড়া আরো বিভিন্ন প্রকার সমস্যা হতে পারে ।  তাই নিয়ে মেনে স্ত্রীর সাথে মেলামেশা করুন এবং সুস্থ থাকুন ।  এরপর আলোচনা করা  করব এই সকল রোগ থেকে এর প্রতিকার কি ?

 পুরুষাঙ্গের রোগের ও প্রতিকার

পুরুষাঙ্গের রোগ বিভিন্ন জটিলতার সাথে হয়ে থাকে । তাই বৈধ বা অবৈধ মেলামেশার জন্য কনডম ব্যবহার করা উচিত ।   কনডম আপনাকে আপনার যৌন সমস্যা থেকে  রক্ষা পেতে ১০০% কার্যকারিতা দেবে । এই রোগ অতি সহজে সারতেছে না ।  অতিরিক্ত মাস্টারবেশন করার ক্ষেত্রে পুরুষাঙ্গের রোগ সৃষ্টি হয় । এছাড়ার নিয়ম না মেনে যৌন মিলন করার ক্ষেত্রে এসব সমস্যাগুলো হয়ে থাকে । মাস্টারবেশন অভ্যাসটা এমন একটি অভ্যাস যা নেশা পরিণত হয়ে যায় ।

  তাই মাস্টারবেশন করার থেকে সতর্কতা অবলম্বনে করা ।  মাস্টারবেশন পারলে পুরুষাঙ্গের যে রোগ বা টিস্য গুলো রয়েছে সেই সকল টিস্যু গুলো নষ্ট হয়ে পুরুষাঙ্গ অতিরিক্ত পরিমাণে দুর্বল হয়ে পড়ে ।  আপনি অতি চেষ্টা করেও সেই পুরুষাঙ্গকে দাঁড় করাতে পারবেন না ।  তাই এই সকল কাজ থেকে নিজেকে বিরত রাখুন ।  এবার আসুন দেখে নেয়া যাক

পুরুষাঙ্গ রোগ থেকে বাঁচার উপায় কি? 

 পুরুষাঙ্গার রোগ থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় হচ্ছে পুরুষাঙ্গ যেন কোন প্রকার ব্যাকটেরিয়া বা সংক্রমণে আক্রমন করতে না পারে । পুরুষাঙ্গকে সবসময়ই পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা রাখার চেষ্টা করবেন । মেলামেশার জন্য কনডম ব্যবহার করা উচিত  ।পুরুষাঙ্গ পরিষ্কার না থাকায় বিভিন্ন প্রকার চুলকানি এবং ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রমণ হতে পারে ।  এছাড়া প্রস্তাবের জ্বালাপোড়া  হতে পারে । তাই এখন থেকে সচেতনতা অবলম্বন করুন ।  পুরুষঙ্গকে সুস্থ রাখার চেষ্টা করুন । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *