May 19, 2024
এলার্জি ঔষধ এর নাম বাংলাদেশ । ঘরোয়া উপায়ে এলার্জি উপশম ।

এলার্জি যা প্রায় প্রতিটি পরিবারে লক্ষ্য করা যায়  ।  এলার্জি  বিভিন্ন জায়গায় হতে পারে যেমন চোখের কোনে, নাকে ,এমনকি সারা শরীরে বা স্কিনে এলার্জি হয়ে থাকে  । এলার্জি ঔষধ এর নাম । এছাড়া এলার্জি হলে কোন কোন খাবারগুলো খাওয়া যাবেনা সে সম্পর্কে একটি তালিকা নিচে দেওয়া হবে । 

বিশেষ করে এটি শীতকালে বেশি দেখা যায় ।  শীতকাল আসলে এলার্জির এলার্জির প্রখর বেড়ে যায় ।  হালকা একটু রোদে গেলে গা চুলকানো শুরু করে এ ছাড়াও সারা শরীর অস্থির অবস্থার সৃষ্টি হয় । আবার অনেকের দেখা যায় চুলকানোর সাথে সাথে রক্ত লাল শরীল হয়ে যায় ।  এই সকল সমস্যার থেকে মুক্তি পেতে নিচে যে সকল এলার্জি ঔষধ এর নাম দেয়া হয়েছে সে সকল ওষুধ সেবন করলে এই সমস্যা থেকে । তাই আসুন দেখে নেই এলার্জি ভালো ওষুধের নাম নিম্নলিখিত করা হলো,

এলার্জি ঔষধ এর নামঃ

এলার্জি সাধারণত তীব্রতার উপর নির্ভর করে চিকিৎসা করা প্রয়োজন ।  কেননা হালকা এলার্জির মধ্যে আপনি যদি পাওয়ারী বা অ্যান্টিবায়োটিক ট্যাবলেট সেবন করেন তাহলে পরবর্তীতে আপনার সমস্যা হতে পারে । তাই আপনার এলার্জির তীব্রতা অন্যান্য রোগের উপর ভিত্তি করে ট্যাবলেট সেবন করা প্রয়োজনীয় । নিচের কিছু সাধারণ এলার্জির চিকিৎসায় ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে পারেন 

  •  অস্টিহিস্টামিন” এই ট্যাবলেটটি সাধারণত চুলকানি, নাক দিয়ে পানি পড়া এবং হাঁচি কমাতে সাহায্য করে .।
  • “স্টেরয়েড” মূলত এই ট্যাবলেটটি এলার্জির ব্যথা কমাতে সাহায্য করে ।  এবং  শরীরে আরাম প্রদান করে । 
  • “আইমিউনোথেরাপি “ শরীরের মধ্যে এলার্জির যে প্রতিক্রিয়া রয়েছে সেই প্রতিক্রিয়া কমাতে এটি কাজ করে ।

এ ছাড়াও এলার্জির জন্য কিছু জনপ্রিয় ওষুধ রয়েছে যে সকল ওষুধ সেবন করলে আপনার এলার্জির সমস্যা দূর হয়ে যাবে । আসুন জেনে নেই সেই সকল জনপ্রিয় এলার্জি  ঔষধ গুলো;

এলার্জি ঔষধ এর নাম বাংলাদেশঃ

  • এন্টিহিস্টামিন এর মধ্যে রয়েছে ,
  • সেটিরিজিন ।
  • লোরাটাডিন ।
  • ফেক্সোফেনাডিন .
  • এরপর স্ট্রোয়েড এর মধ্যে রয়েছে,
  • বক্লোমেথাসোন
  • ফ্লুটিকাসন
  • মোমেটাসন
  • আইমিউনোথেরাপি এর মধ্যে রয়েছে,
  •  ডিসিপি
  •  ওরাল  ইমিউনোথেরাপি 

উপরের এই সকল ঔষধ গুলোর মধ্যে কোনটি ভালো সেটা নির্ধারণ করার জন্য একজন ভালো ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে সেবন করবেন না ।  ডাক্তার আপনার এলার্জির তীব্রতার উপর নির্ভর করে এই ওষুধগুলো মধ্যে কোনটি ভালো যেটা খেলে আপনার এই সমস্যা দূর হবে সেই ট্যাবলেট কি আপনাকে দেবে । এছাড়াও ঘরোয়া পদ্ধতিতে কিছু এলার্জি উপশম করা যেতে পারে।  তাই আসুন দেখে নিয়েই ঘরোয়া উপায়ে কিভাবে এলার্জি উপশম করতে হয় ।

আরও পড়ুন

ঘরোয়া উপায়ে এলার্জি উপশমঃ

এলার্জি সাধারণত একটি স্বাস্থ্য সমস্যা যা অনেক মানুষকে প্রভাবিত করে । তাই ওই এলার্জি থেকে উপশময় পেতে হলে নিচের কিছু দিকনির্দেশনামূলক মূলক নিম্নলিখিত করা হলো ,

  • হালকা গরম পানি দিয়ে আপনি গোসল বা  মুখ ধোতে পারেন । 
  • অসত্য  পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম নেওয়া । 
  • অ্যালর্জেন এড়িয়ে চলো  ।
  • নস্যি ব্যবহার করা ।

উপরের এই সকল নিয়মগুলো সঠিকভাবে মেনে চললে এলার্জির জন্য অনেক  উপসম হয় ।  এ ছাড়া আর কিছু খাবার আছে যে সকল খাবার খেল অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে যায় ।  আসুন সেই সকল খাবার  দেখে নেই যে সকল খাবার খেলে এলার্জি অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে যায় । সে সকল খাবারের নিম্নলিখিত একটি তালিকা দেয়া হল 

এলার্জি হলে কি খাওয়া যাবে নাঃ

  • সর্বপ্রথম যেটা আসে সেটা হচ্ছে গরুর মাংস ।  গরুর মাংস  খেলে এলার্জির প্রখর প্রচুর পরিমানে  বেড়ে যায় । এবং গা জ্বালাপোড়া বা চুলকানি শুরু হয় ।
  • এরপর রয়েছে কুমড়ো ।  কুমড়ো ছেলের এলার্জির পাত্রা বেড়ে যায় তাই  এলার্জি রোগীর জন্য  এই খাবারটি খাওয়া নিষেধ
  •  এর পরে হচ্ছে ডিম ।  এলার্জি হলে ডিমও খাওয়া যাবে না ডিম খেলে এলার্জি বৃদ্ধি পায়। তাই সকল খাবার থেকে বিরত থাকুন

 উপরের এই সকল খাবার খেলে মূলত এলার্জি অধিক মাত্রায় বৃদ্ধি পায় ।  তাই এই সকল খাবার থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করবেন ।  আর যত দ্রুত পান একজন ভালো ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে ওষুধ সেবন করতে পারেন । এলার্জির ধরন  বিভিন্ন রকমের হতে পারে তাই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা জরুরী ।  আপনার এলার্জির তীব্রতার উপর নির্ভর করে আপনাকে ওষুধ সেবন করতে হবে । 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *